প্রথম বিশ্ব যুদ্ধের পর,রূপা ও সোনার ঘাটতি দেখা যায় বাজারে। রূপার দাম খুব বৃদ্ধি পাওয়ার কারনে ব্রিটিশ সরকার ১৯১৭ এ বাজার থেকে সব রূপার টাকা তুলে নিয়ে যায়। এর পরিবর্তে প্রথম কাগজের টাকা বাজারে দেওয়া হয়।মজার বিষয়,এই টাকাতে পঞ্চম জর্জ এর ছবি সম্বলিত এক টাকার কয়েনের ছবি দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

অবিভক্ত ভারতের এক রুপি নোট, Stay Curioussis

নোটটি ভালো করে পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায়, বাংলা ভাষার অবস্থান এখানে তৃতীয়, উর্দু এর অবস্থান প্রথম, বার্মিজ ভাষাও দেখতে পাওয়া যাচ্ছে l বার্মা তখন ব্রিটিশদের অধীনে ছিল। দেবনাগীর ভাষা দ্বিতীয় থাকলেও হিন্দি ভাষা দেখা যাচ্ছে না । আসলে সবকিছুতেই ইতিহাস আছে। আমরা তাই খুজছি ।